ফিফা ফুটবল বিশ্বকাপ

কাতার বিশ্বকাপে যেসব রেকর্ড ভেঙে দিতে পারেন মেসি-রোনালদো- নেইমাররা

কাতারে একাধিক রেকর্ড নিজেদের করে নেওয়ার হাতছানি দিচ্ছে তাদের।

ডেস্ক রিপোর্ট

২০ নভেম্বর ২০২২, দুপুর ২:২০ সময়

[ 20221120_141715.jpg ]

আর দিন নয়। চলছে ঘণ্টা, মিনিট, সেকেন্ডের হিসাব। সময় যত এগোচ্ছে কাতার বিশ্বকাপ ঘিরে উত্তেজনার পারদ যেন তত চড়ছে। আজ (রোববার) রাতে কাতারের দোহায় পর্দা উঠবে দুনিয়ার সবচেয়ে বড় ক্রীড়াযজ্ঞ ‘ফুটবল বিশ্বকাপ’-এর ২২ তম আসরের। 

ফুটবল বিশ্বকাপ মানেই তো রেকর্ড ভাঙ্গা-গড়ার খেলা। কাতারে বিশ্বকাপেও নিশ্চিত সেটাই হতে যাচ্ছে। মধ্যপ্রাচ্যের দেশটিতে হওয়া ফুটবলের বৈশ্বিক আসরে বেশকিছু রেকর্ডই এবার ভেঙে যেতে পারে। 

তন্মধ্যে লিওনেল মেসি, ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো, থমাস মুলার ও নেইমারদের মতো  তারকা ফুটবলারদের সামনে একাধিক রেকর্ড নিজের নামে করার হাতছানি রয়েছে। কী সেই রেকর্ডগুলি?

থমাস মুলার:

ফুটবল বিশ্বকাপের তিন আসরে থমাস মুলার অ্যাসিস্ট করেছেন ৬টি। আর মাত্র ২টি অ্যাসিস্ট করতে পারলেই জার্মান মিডফিল্ডার ছাড়িয়ে যাবেন আর্জেন্টাইন প্রয়াত কিংবদন্তি দিয়েগো ম্যারাডোনাকে। অ্যাসিস্টের হিসাব রাখার পর থেকে ছিয়াশি বিশ্বকাপে র নায়ক বিশ্ব মঞ্চে ৮টি অ্যাসিস্ট করেছেন। 

ক্রিশিয়ানো রোনালদো:

বিশ্বকাপের ইতিহাসে মাত্র ৪ জন ফুটবলড় টানা ৪ আসরে গোলের দেখা পেয়েছেন। তারা হলেন: পেলে, মিরোস্লাভ ক্লোসা, উইই সেলার ও ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। পর্তুগিজ মহাতারকা কাতার বিশ্বকাপে গোল করে রেকর্ডটি নিজের করে নিতে পার বেন। 

রোনালদো সামনে সুযোগ আছে বিশ্বকাপে পর্তুগালের হয়ে সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড নিজের করেও নেওয়ার। বিশ্ব মঞ্চে পর্তুগিজদের হয়ে সর্বোচ্চ ৯ গোল করেছেন ‘কালো চিতা’ খ্যাত ইউসেবিও। রোনালদোর বিশ্বকাপে গোলসংখ্যা ৭টি। 

লিওনেল মেসি:

থমাস মুলারের মতো বিশ্বকাপের ইতি সর্বোচ্চ অ্যাসিস্টের রেকর্ড ছোয়ার হাতছানি দিচ্ছে লিওনেল মেসিকেও। চার বিশ্বকাপে মেসি অ্যাসিস্ট করেছেন ৫টি। ৮টি করে এই তালিকায় চূড়ায় আছেন দিয়েগো ম্যারাডোনা। 

আর্জেন্টিনার হয়ে টানা তিন বিশ্বকাপে গোলের দেখা পেয়েছেন স্রেফ তিনজন। ম্যারাডোনা, বাতিস্তিতা এবং মেসি। কাতারে গোলের দেখা পেলে সাতবারে বর্ষসেরা

ফুটবলার ছাড়িয়ে যাবেন তাদেরও। আকাশী-নীলদের হয়ে বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ গোলদাতা বাতিস্তিতাকে (১০) ছুতে মেসির আর ৪ গোল করা লাগবে। 

নেইমার:

কাতার বিশ্বকাপে আর ৩টি গোল কর‍তে পারলেই ব্রাজিলের সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা বনে যাবেন নেইমার। ১২১ ম্যাচে সেলেসাওদের হয়ে ৭৫টি গোল করেছেন পিএসজি ফরোয়ার্ড। ব্রাজিলের হয়ে ৭৭ গোল করে রেকর্ডটি এখনও পেলেও দখলে আছে।

হ্যারি কেইন:

নেইমারের মতোই দেশের হয়ে সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা বনে যাওয়া রেকর্ড হাতছানি দিচ্ছে হ্যারি কেইনকে। ইংল্যান্ডের হয়ে ১২০ ম্যাচে রেকর্ড ৫৩ গোল করেছেন হোয়াইন রুনি। কাতারে আর ৩ গোল করলে ইউনাইটেড কিংবদন্তিকেও ছাড়িয়ে যাবেন কেই ন। থ্রি লায়ন্সদের হয়ে স্পার্স তারকা ৭৫ ম্যাচে ৫১ গোল করে ফেলেছেন।