ফিফা ফুটবল বিশ্বকাপ

বিশ্বকাপের ৯২ বছরের ইতিহাস ধরে রাখতে পারল না কাতার

বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচেই কাতারকে হারিয়ে ইতিহাস গড়লো ইকুয়েডর।

ডেস্ক রিপোর্ট

২১ নভেম্বর ২০২২, রাত ১২:০ সময়

[ 20221120_235801.jpg ]

ফুটবল বিশ্বকাপে এতদিন স্বাগতিক দেশের প্রথম ম্যাচ মানেই ছিলো নিশ্চিত জয়। ‘দ্য গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ’-এর আগের ২২ আসরে কখনোই আয়োজক দেশ হারের মুখ দেখেনি। যেখানে ১৬টিই জিতেছিলো আয়োজককারী দল, আর ড্র হয়েছে বাকি ৬টি। 

ফুটবলের বৈশ্বিক আসরের ৯২ বছরের সেই অনবদ্য রেকর্ডটি ভেঙে দিল ইকুয়েডর। ঘরের মাঠে বিশ্বকাপে উদ্বোধনী ম্যাচটা রাঙ্গাতে পারল না কাতার। মধ্যপ্রাচ্যের দেশটিকে অনায়াসেই হারিয়ে আসরের শুভসূচনা করেছে লাতিন আমেরিকার দেশ ইকুয়েডর। 

আজ (রোববার) রাতে দোহার আল বাইত স্টোডিয়ামে কাতার বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচটি ২-০ গোলে হেরেছে স্বাগতিক কাতার। ইকুয়েডরের জোড়া গোল করেছেন এনের ভ্যালেন্সিয়া। বিশ্বকাপের ইতিহাসে এবারই প্রথম আয়োজককারী দেশকে প্রথম ম্যাচে হারাতে পারল কোন দল। 

বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচে কাতারকে কোন পাত্তাই দেয়নি ইকুয়েডর। গোটা ম্যাচে এদিন বল দখলের লড়াইয়ে এগিয়ে ছিলো লাতিন আমেরিকার দেশটি।

পুরো ম্যাচে ৫৩ শতাংশ বল দখলে রাখা দলটি গোলমুখে শটও নিয়েছে সবচেয়ে বেশি ৬টি। যেখানে লক্ষ্যেও ছিলো ৩টি। আর বিপরীতে, কাতার গোলমুখে ৫টি শট নিলেও ১টিও লক্ষ্যে রাখতে পারেনি। 

ম্যাচের শুরু থেকেই আক্রমণ শানানো ইকুয়েডর তৃতীয় মিনিটেই এগিয়ে গিয়েছিলো। স্বাগতিক দর্শকদের স্তব্ধ করে দিয়ে ডান দিক থেকে সতীর্থের দারুণ অ্যাক্রোবেটিক পাস পেয়ে গোলমুখ থেকে হেডে জালে বল পাঠান এমার ভ্যালেন্সি। ভিএআর প্রযুক্তিতে ইকুয়েডরের অধিনায়কের গোলটি বাতিল হয়ে যায়। 

অবশ্য, এতেও দমিয়ে রাখা যায়নি ইকুয়েডরকে। ১৬তম মিনিটে সেই ভ্যালেন্সিয়ার গোলেই এগিয়ে যায় লাতিন আমেরিকার দেশটি। কাতার গোলরক্ষক নিজেদের ডি- বক্সে ইকুয়েডর অধিনায়ককে ফাইল করলে পেনাল্টি পায় তারা। সফল স্পটকিকে বিশ্বকাপের প্রথম গোলটি করে দলকে এগিয়ে দেন ভ্যালেন্সিয়া। 

গোল খেয়ে নিজেদের যেন হারিয়ে ফেলে কাতার। ইকুয়েডরও আক্রমণের ধার বাড়াতে থাকে। ৩১তম মিনিটে দারুণ হেডে আবারও দলকে এগিয়ে দেন ভ্যালেন্সিয়া। বিশ্বকাপে ইকুয়েডরের সবশেষ ৫টি গোলই করলেন তার্কিশ লীগেক খেলা এই ফরোয়ার্ড। প্রথমার্ধে ২-০ গোলে এগিয়ে যায় ইকুয়েডর। 

বিরতির পর মাঠে ফিরে আরও কিছু গোলের সুযোগ পেয়েছিলো ইকুয়েডর। তবে কাজের কাজ করতে না পারায় ব্যবধান বাড়াতে পারেনি তারা। কাতারও নিজেদের রক্ষণদুর্গ সামলিয়ে বড় কোন আক্রমণ শানাতে পারেনি। ফলে, আসরের প্রথম ম্যাচটি ২-০ গোলের জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে ইকুয়েডর।